• শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:১৭ পূর্বাহ্ন
  • English English

নির্বিষ বোলিংয়ে হতাশ বাংলাদেশ

প্রতিবেদকের নাম / ৩৯ শেয়ার
প্রকাশিত : রবিবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

চট্টগ্রাম টেস্টের শেষ দিন লাঞ্চ বিরতির আগে কোনো উইকেট নিতে পারেনি বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান ৩ উইকেটে ১৯৭। এখনও টিকে কাইল মেয়ার্স ও এনক্রুমা বনার। বাংলাদেশের সামনে সুযোগ ছিল উইন্ডিজকে চাপে ফেলার। কিন্তু ঠিকমত রিভিও কাজে না লাগাতে পারা ও বাজে ফিল্ডিং, ক্যাচ মিসের কারণে হতাশ হয়েই লাঞ্চ বিরতিতে গেছে বাংলাদেশ।

৩৭ রানে অপরাজিত থাকা মায়ার্সের রান এখন ৯১। টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেকের ম্যাচে তিনি ৮৯ বলে ফিফটির দেখা পান। বোনারও খেলছেন দুর্দান্ত, তার রান ৪৩। দুজনের চতুর্থ উইকেটের জুটিতে ১৩৮ রান যোগ করেছে দলীয় স্কোরে। বোনার-মায়ার্সের সামনে অসহায় দেখাচ্ছে মিরাজ-তাইজুলদের। উইন্ডিজ এখনো পিছিয়ে আছে ১৯৮ রানে।

চতুর্থদিনের শেষ সেশনের খানিক আগে বাংলাদেশ ৮ উইকেটে ২২৩ রান তুলে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে। ১১৫ রানের সেঞ্চুরি পান মমিনুল হক। লিটন দাস খেলেন ৬৯ রানের ইনিংস।

এর আগে ৩৯৫ রানের টার্গেটে নেমে ধীরেসুস্থেই শুরু করেছিল উইন্ডিজ দুই ওপেনার। দুইজনই যখন উইকেটে থিতু তখন ১৭তম ওভারের প্রথম বলেই এলবি’র ফাঁদে পড়েন ক্যাম্পবেল। সঙ্গে সঙ্গে আম্পায়ারকে চ্যালেঞ্জও ছুঁড়ে দেন এই ব্যাটসম্যান তবে রিভিউতে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই রয়ে যায়। আর ক্যাম্পবেল ব্যক্তিগত ২৩ রানে দলীয় ৩৯ রানে ফেরেন।

এক ওভারের বিরতিতে ফিরে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে তুলে নেন মিরাজ। বদলি ফিল্ডার ইয়াসির আলী রাব্বির দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হন ব্র্যাথওয়েট (২০)। নিজের ৯ম ওভারে বল করতে এসে শেন মোসলেকে (১২) এলবি’র ফাঁদে ফেলে উইন্ডিজের তিন উইকেটের তিনটিই নিজের দখলে নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। দলীয় ৫৯ রানে তিন উইকেট হারায় সফরকারীরা।

টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে মিরাজের প্রথম শতকে ৪৩০ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। জবাবে প্রথম ইনিংসে মিরাজের চার উইকেটে ২৪৯ রানে অলআউট হয় উইন্ডিজ দল। আর তাতেই মুমিনুল হকের দল প্রথম ইনিংসে লিড পেয়ে যায় ১৭১ রানের। দ্বিতীয় ইনিংসে অধিনায়ক মুমিনুলের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি ও লিটন দাসের ৬৯ রানে ভর করে ২২৩ রানে ৮ উইকেটে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। তাতেই দুই ইনিংস মিলিয়ে মোট লিড ৩৯৪।


এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ